বাংলাদেশের নির্বাচন বাতিলের দাবিতে জাতিসংঘের সদর দফতরের সামনে বিক্ষোভ

img

বাংলাদেশের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন প্রত্যাখ্যান ও নির্দলীয় সরকারের অধীনে পুনরায় নির্বাচনের দাবিতে নিউইয়র্কের জাতিসংঘ সদর দফতরের সামনে বিক্ষোভ করেছে প্রবাসী বাংলাদেশীরা।১৫ই জানুয়ারি  মঙ্গলবার স্থানীয় সময় দুপুর ১২টায় জাতিসংঘ সদর দপ্তরের সামনে অনুষ্ঠিত হয় এক বিক্ষোভ সমাবেশ।
‘বাংলাদেশী আমেরিকান প্রগ্রেসিভ ফোরাম’ (বাপফ) এর আয়োজনে অনুষ্ঠিত সমাবেশে এসময় বক্তারা বলেন, প্রকাশ্যে ভোট ডাকাতি আর তামাশাপূর্ণ নির্বাচনে জাতির কষ্ট আরও বাড়বে। শেখ হাসিনা জিদের বশবর্তী হয়ে নির্বাচন করছে ঠিকই কিন্তু বিশ্ববাসীর কাছে দেশও দেশের মানুষকে কলঙ্কিত করেছে।

তারা বলেন, প্রধান নির্বাচন কমিশনারসহ নির্বাচন পরিচালনার সাথে জড়িত সকলের সাধারণ মানুষের সাথে দলীয় কর্মীর মতো ব্যবহার করেছে। নির্বাচন কমিশন ও সরকারের জিদের ফসল ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনে দেশবাসীর অপুরণীয় ক্ষতি সাধিত হয়েছে। বাংলাদেশের গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে বিশ্বসমাজকে যথাযথ ভূমিকা পালন করার আহ্বান জানানো হয় সমাবেশে।

এসময় বক্তারা আরো বলেন, নির্বাচন কমিশনের একপেশী আচরণে নির্বাচন সব প্রার্থীর জন্য প্রচারে সমান সুযোগ ছিল না। নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক ছিল, কিন্তু প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হয়নি। এতে বিশাল অঙ্কের অর্থের অপচয় করে দেশকে অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ করছে। দেশী-বিদেশী পর্যবেক্ষকবিহীন এই প্রহসনের নির্বাচন পরিচালনা করে বর্তমান নির্বাচন কমিশন ইতিহাসের পাতায় ঘৃণিত হয়ে থাকবে।
তারা বলেন, ক্ষমতা ও খুনের নেশায় মাতাল এ সরকার দেশের সাধারণ মানুষের বিরুদ্ধে সেনা-বিজিবি-র‌্যাব, পুলিশ এবং ছাত্র-যুবলীগের সন্ত্রাসীদের লেলিয়ে ভোটের আগের দিন সারা দেশে ভোট ডাকাতির মাধ্যমে বাক্সগুলো ভরপুর রাখে। রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের মধ্য দিয়ে নজিরবিহীনভাবে একটা যুদ্ধাবস্থা তৈরি করে ত্রাস-ভীত সৃষ্টি করে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন করেছে সরকার। এনির্বাচন প্রমান করেছে দলীয় সরকারের অধীনে আর কোনো নির্বাচন সুষ্ঠু হওয়া সম্ভব নয়।

এসময় বক্তারা আরো বলেন , প্রবাস থেকে আমরা ভোট ডাকাতির এই নির্বাচনের ফলাফলকে পুরোপুরি প্রত্যাখ্যান করেছি এবং অনতিবিলম্বে নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দাবি করছি। সমাবেশ শেষে জাতিসংঘ মহাসচিব এন্টিনিও গুতেরাস-এর বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।
প্রগ্রেসিভ ফোরামের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা প্রফেসর নূরুল ইসলামের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমানের পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, আহমদ আবু উবায়দা, সাফায়েত হোসাইন সাফা, মাওলানা শিহাব উদ্দিন, আবু জাফর, নঈম উদ্দিন, মাইনুদ্দীন হাসান।
শীতের তীব্রতা উপেক্ষা করে এসময় বিক্ষোভে অংশগ্রহণকারীরা পুনর্নির্বাচনের দাবিতে শ্লোগানে মুখরিত করে তুলেন পুরো জাতিসংঘ চত্বর। এসময় ব্যানারে ইংরেজিতে লিখা ছিল দেন, "ভোটিং রাইট হিউম্যান রাইট"।