মিডিয়া, সোশাল মিডিয়া : সঙ্কট ও সম্ভাবনা শীর্ষক আলোচনা সভা

img

“মিডিয়া, সোশাল মিডিয়া : সঙ্কট ও সম্ভাবন “ শিরোনামে অনলাইন এক্টিভিষ্টদের নিয়ে  একটি আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। 
আয়োজক : ourislam24.com
স্থান : ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সমিতি মিলনায়তন, (প্রেসক্লাবের বিপরীতে, ঢাকা)
সভাপতি : হুমায়ুন আইয়ুব
প্রধান অতিথি : Khatib Tajul Islam

আলোচনার সারসংক্ষেপ :
* সবাইকে আরও উদার হতে হবে। দৃষ্টিভঙ্গির প্রশস্ততা প্রয়োজন। 'আমাদের' বলতে কেবল আমাদের ঘরানা ও গণ্ডির ভেতর সীমাবদ্ধ থাকা উচিত নয়। ভারত পাকিস্তানের আলেমগণ আহলে হাদীস, জামায়াতে ইসলামী ও অন্যান্য শ্রেণির লোকজনের সাথে ইসলামের বৃহৎ স্বার্থে এক টেবিলে বসতে পারলে আমরা পারব না কেন?! আমাদের দৃষ্টিভঙ্গি এত সঙ্কীর্ণ কেন?

* সমালোচনা শোনার মানসিকতা থাকা উচিত। কাজের সমালোচনা হবেই। সমালোচনা শুনে প্রতিক্রিয়া না দেখানো। খারাপ না ভাবা। ইতিবাচক দৃষ্টিতে দেখা। তবে সমালোচনা হতে হবে গঠনমূলক। এবং কোনোক্রমেই মুরুব্বিদের সমালোচনা না করা।

* নবী সা. ও সাহাবায়ে কেরামের আদর্শ থেকে কোনোভাবেই চ্যুত না হওয়া। লেখক মানেই টুপি খুলে ঘুরতে হবে, তা না। কেউ রাতজেগে লেখা তৈরি করেছে, তাই বলে ফজরের জামাতে গাফলতি মেনে নেওয়া যায় না।

* যোগ্যতার পাশাপাশি উচ্চতর ডিগ্রি অর্জন করা উচিত। মেধাবীদের আইন ও সাংবাদিকতা নিয়ে ঢাবি বা অন্যান্য পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় হতে উচ্চতর ডিগ্রি নেওয়া আবশ্যক। ফলে যোগ্যতা ও ডিগ্রির সম্মিলন থাকায় ভালো অঙ্গনে সেবা করার সুযোগ পাবে।

* পারস্পরিক সহযোগিতার মনোভাব থাকা জরুরি। চিন্তার আদানপ্রদান হলে মেধা বিকশিত হবে। নতুন জগতের সন্ধান পাবে। নিজের ঘরানার অন্যদের এবং অন্য ঘরানার অন্যদের মতামত জানা আবশ্যক। পাকিস্তানের জামিয়াতুর রশীদের ইফতা বিভাগে করাচি ইউনিভার্সিটির শিক্ষকগণ ক্লাস নেন। তারা সম্মিলিতভাবে কাজ করে, গবেষণাপত্র প্রণয়ন করে। বিশ্বের অনেক নামিদামি প্রকাশনী যৌথ বই পাবলিশ করে। একটা বই একাধিক লেখক রচনা করে। কিন্তু আমাদের দেশে যৌথ কাজ কম। চিন্তার মিল নেই। অথচ একাকী কাজ করার চেয়ে যৌথ কাজ অনেক দ্রুত শেষ হয় এবং নির্ভুলের সম্ভাবনা থাকে।

* সমাজ আলেমসমাজের ওয়াজ শুনে কিন্তু তাদের কেউ ভোটে দাঁড়ালে জনগণ ভোট দেয় না। বাংলাদেশের বিখ্যাত বক্তা মাওলানা হাফিজুর রহমান সিদ্দিকী। তার ছোটো দুই ভাই মুফতি হাবিবুর রহমান মিসবাহ ও মাও. মাহফুজুর রহমান জাবের। তিনোজনের আকাশচুম্বী জনপ্রিয়তা থাকা সত্ত্বেও তারা তিন ভাই মিলে তাদের পিতাকে ইউপি নির্বাচনে পাশ করাতে পারেনি! 
এর কারণ কী?

* কথায় কথায় কাউকে কারও দালাল বলার তীব্র নিন্দা জানানো হয়। বিশেষত ছোটো ছোটো পোলাপান ফেসবুক চালায় কিন্তু এদের অনেকে মুরুব্বি ও গণ্যমান্য লোকদের অযাচিত সমালোচনা করে। এগুলোও মারাত্মক অন্যায়।

* মিডিয়ার সীমাবদ্ধতা আছে। ইচ্ছে করলেই সব নিউজ করতে পারে না। এ বিষয়টিও পাঠকের মাথায় রাখতে হবে।

* আমরা শুধু মুখেমুখে দেওবন্দের জিগির তুলি; কিন্তু বাস্তবে দেওবন্দের অনুসরণ করি না। তাদের চিন্তাচেতনা ও মানহাজ মানি না। দেওবন্দের উদারতা, গভীরতা, চিন্তার প্রশস্ততা ও সামগ্রিকতা, অবিচলতা, ভিন্নমতকে শ্রদ্ধা করা-- এসব কেন অনুসরণ করি না?!

আরও অনেক আলোচনা হয়।  অনেক প্রিয় লেখকের সান্নিধ্য আপ্লুত ও মুগ্ধ করেছে। অনেকের সাথে এই প্রথম সাক্ষাৎ। বেশ উপভোগ্য, শিক্ষণীয় ও প্রাণবন্ত একটি সন্ধ্যা কাটল। সবাইকে অশেষ ধন্যবাদ।

আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন : 
Wali Ullah Arman
Amimul Ehsan
Zahir Uddin Babor
Munirul Islam
Ali HasanTaib
Syed Shamsul Huda
Yousuf Sultan
আবদুস সাত্তার আইনী
Alhajj Imranul Bari Siraji
Mohiuddin Faroqi
Sakil Adnan
Mohiuddin Kasemi
আরও অনেকে বক্তৃতা করেন। উপস্থিত ছিলেন চেনা অচেনা অনেকে।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন : 
রোকন রাইয়ান
Amin Iqbal