ইসলামি আদর্শের আলোকে কল্যাণ রাষ্ট্র গঠনে এগিয়ে আসুন

img

চট্টগ্রাম থেকে সগীর আহমদ চৌধুরী

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের সিনিয়র নায়েবে আমীর হযরত মাওলানা মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ ফয়জুল করীম (শায়খে চরমোনাই) বলেছেন, ইসলাম একটি সর্বশ্রেষ্ঠ জীবনাদর্শ, একটি পূর্ণাঙ্গ জীবনব্যবস্থা এবং একটি কল্যাণকর মতবাদ। এ জীবনব্যস্থা শুধুমাত্র মুসলমানদের জন্য কল্যাণকর তা নয়, দুনিয়ার তাবৎ মানবজাতি এমনকি সমস্ত সৃষ্টিজগতের জন্য মহানবী (সা.) ও তাঁর প্রচারিত আদর্শ রহমত হিসেবে পৃথিবীতে প্রেরিত হয়েছে। গত শুক্রবার বেলা ৩ ঘটিকা হতে চট্টগ্রাম মুসলিম ইউনিস্টিটিউট হলে আয়োজিত ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ চট্টগ্রাম মহানগরের কর্মি সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপর্যুক্ত কথা বলেন।


শায়খে চরমোনাই বলেন, আজকে একশ্রেণির মানুষ ইসলাম সম্পর্কে যাদের পড়াশোনা বলতে কিছুই নেই স্রেফ অনুমান ও ইসলাম বিদ্বেষ থেকে ইসলামি রাষ্ট্র ধারণা সম্পর্কে জনগণের মাঝে বিভ্রান্তি চড়াচ্ছে। ইসলামি রাষ্ট্র ধারণাকে সাম্প্রদায়িক ও বর্ণবাদী রাষ্ট্র হিসেবে চিত্রিত করছে। শায়খ বলেন, ইসলামি রাষ্ট্রে অমুসলিমদেরকে অমুসলিম বলা হয় না, জিম্মি বলা হয়; যাদের জান-মালের নিরাপত্তা এবং ধর্মপালনের স্বাধীনতার জিম্মাদারি খোদ রাষ্ট্র পালন করে। ইসলামি রাষ্ট্রে অমুসলিমদের যে মর্যাদা ইসলাম দিয়েছে তা আধুনিক তথাকথিত ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র দিতে পারেনি।


নেতা-কর্মিদের উদ্দেশ্যে নায়েবে আমীর বলেন, ইসলামের ভোগের বিরোধিতা করে। ক্ষমতা-অর্থ-বিত্ত, দুর্নীতি ও জুলুমের বিরুদ্ধে লড়াই করার শিক্ষা দেয়। ইসলাম একটি কল্যাণ ধর্ম, জনগণের কল্যাণ, সুস্থ সমাজ গঠন, ইনসাফ কায়েম, মানবাধিকার প্রতিষ্ঠা এবং শোষণবিহীন রাষ্ট্র গঠনের আহ্বান জানায়। কাজেই ক্ষমতায় আরোহণ ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের নেতা-কর্মিদের কাছে মুখ্য হতে পারে না, নীতিহীন রাজনীতি ও দুর্নীতিগ্রস্ত রাষ্ট্রব্যবস্থার পরিবর্তনের আন্দোলন গড়ে তোলাই ইসলামের প্রত্যেক প্রকৃত অনুসারীদের কাজ।


শায়খ বলেন, ইসলামি হুকুমত কায়েমের নামে উগ্রবাদ ছড়িয়ে যুবসমাজকে বিভ্রান্তির অতল গহ্বরে ঢেলে দিচ্ছে এক শ্রেণির কুচক্রী মহল। অথচ জিহাদের ময়দানেও আত্মঘাতমূলক কর্মকাণ্ড ইসলাম পরিষ্কারভাবে নিষিদ্ধ করেছে। ইসলামের জিহাদ ও যুদ্ধনীতিকে সর্বোচ্চ শান্তিপূর্ণ উল্লেখ করে শায়খ বলেন, ইতিহাস সাক্ষ্য, ভীষণ যুদ্ধাবস্থায়ও মুসলিম বাহিনীর চেষ্টা থাকতো শত্র“-মিত্র উভয়ের যতটুকু সম্ভব ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে। অতএব আজকে যারা ধ্বংস ও অতর্কিত হামলা চালিয়ে বেসামরিক মানুষ হত্যা করে ইসলামের সৌন্দর্যকে কলুষিত করার চেষ্টা করছে তাদের পেছনে কারা আছে সে সম্পর্কে সকলকে সজাগ হতে উদাত্ত আহ্বান জানান।


ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ চট্টগ্রাম মহানগর সভাপতি আলহাজ জান্নাতুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মি সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দলের যুগ্ন মহাসচিব অধ্যাপক আমিনুল ইসলাম, অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সহ-সভাপতি আলহাজ মুহাম্মদ আবুল কাশেম মাতব্বর, সেক্রেটারি মুহাম্মদ আল-ইকবাল, ডা. ফরিদ খান, মুফতী মুহাম্মদ হুমায়ুন কবীর খালবী, ডা. মুহাম্মদ রেজাউল করীম, এইচএম মুসলেহ উদ্দীন, হাফেজ আবদুল মান্নান, মাওলানা সুলতানুল ইসলাম ভুইয়া, যুব নেতা মু. সগির আহমদ চৌধুরী, ছাত্রনেতা মুহাম্মদ নিজাম উদ্দীন, মাওলানা মুহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম জিহাদী, মাওলানা কারী দিদারুল মাওলা, মাওলানা শেখ মুহাম্মদ আমজাদ হোসাইন, মুফতী মুহাম্মদ ইবরাহীম, মাও. তরীকুল ইসলাম, আলহাজ মুহাম্মদ রফিকুল আলম, আলহাজ মুহাম্মদ আলী আকবর, মাওলানা কামাল উদ্দীন সাকী প্রমুখ।

বার্তাপ্রেরক
মু. সগির আহমদ চৌধুরী