তুলনামূলক ধর্মতত্ত্বের একটি বই : একজন মুসা আল হাফিজ

img

আজ যদি আপনি তুলনামূলক ধর্মতত্ত্বের ছাত্রদের জিজ্ঞাসা করেন যে, তুলনামূলক ধর্মতত্ত¡ কোথা থেকে এসেছে? সে হয়তো বলবে, এটা নিয়ে সপ্তদশ শতকে গবেষণা করেছিলেন লর্ড হার্ভাট। দার্শনিক জন লক, ১৬৯২ সালে মৃত্যু হয় এই বরেণ্য দার্শনিকের, তিনি আলোচনা করেছেন তুলনামূলক ধর্মতত্তে¡। তিনি এ শাস্ত্রে প্রাথমিক চিন্তানায়কদের একজন। তারপর হয়তো আরও শক্তিশালীভাবে বলবে প্রাচ্যবিদ ম্যাক্স মুলারের কথা। বলবে, তিনি এর জনক। সে দাবি করবে, এই বিজ্ঞান এসেছে জার্মানি থেকে, ইউরোপ থেকে। বলতে পারে এ বিজ্ঞানের অগ্রপথিক ই, বি, টেইলর। জেমস ফ্রেজারের কথাও বলতে পারে। বলতে পারে ম্যাবেটের কথা। কিংবা এডলফ বাস্টেন। যাঁরা নৃতাত্ত্বিক হয়েও ধর্মতত্ত্বের আলোচনা করেছেন নিবিড়ভাবে।

এ ছাড়াও উইলফ্রেড ক্যান্টওয়েল স্মিথকে দেখা হয় এ বিষয়ে অগ্রণী ব্যক্তিত্ব হিসেবে। এস্টলিন কার্পেন্টার অথবা জোয়াকিম ওয়াচ এঁরাই এ শাস্ত্রের অগ্রপথিক। এঁদের মাতৃস্নেহে প্রতিপালিত হয়ে এ শাস্ত্র শৈশব, কৈশোর অতিক্রম করে এখন যুবক। ছাত্ররা এসব বলবে। বাংলাদেশের ছাত্র যেমন বলবে, তেমনি বলবে জাপান, কুরিয়া, মিসর, চিলি কিংবা জার্মানির একজন ছাত্র। বর্তমানে সারা বিশ্বের তুলনামূলক ধর্মতত্ত্বের ছাত্ররা এভাবেই জানেন। এটাই তাঁরা শিখেছেন, শুনেছেন, পড়েছেন। কিন্তু এই প্রচলিত মিথকে ভেঙ্গে দিতে চান কবি, গবেষক উস্তাদ মুসা আল হাফিজ।

তিনি দাবি করছেন, তুলনামূলক ধর্মতত্ত্ব জ্ঞানশাস্ত্রে মুসলিমদের হারানো সম্পদ। তিনি ইতিহাস খুঁড়ে বের করেছেন এ শাস্ত্রের ইসলামী উত্তরাধিকার।বলছেন, আমাদের পূর্বপুরুষের অর্জিত সম্পদ আমরা হারিয়ে ফেলেছি। ভুলেই গেছি, জ্ঞান ও প্রজ্ঞার এই মহাদেশে আমাদের কত কত বিনিয়োগ ও অধিকার ছিলো, ছিলো কর্তৃত্ব। পশ্চিমা চিন্তাশাসন আমাদেরকে যে সব গল্প শোনায়, উস্তাদ মুসা আল হাফিজ বিকল্প গল্প, সত্যশাসিত বিকল্প ভাষ্য আমাদের শোনাচ্ছেন। জানিয়ে দিচ্ছেন মুসলিম উম্মাহকে তার অতীত উত্তরাধিকার। বলে দিচ্ছেন বর্তমানকে রাঙ্গাবার পথ, ভবিষ্যতকে আলোকময় করার দীক্ষা। এ বই সেই ধারাবাহিকতার একটি উজ্জ্বল মাইলফলক।

তুলনামূলক ধর্মতত্ত্ব বিষয়ে তার তিনটি বক্তব্যের গ্রন্থনা এ বই। গ্রন্থনার কাজটি করেছেন আলেম, দাঈ আরিফ জামান।

বইটি প্রকাশ করেছে আমন্ত্রণ প্রকাশন।
যোগাযোগ- 01904477807, 01977377189
মূদ্রিত মূল্য ১৬০ টাকা।